ঢাকা শনিবার, ৭ই ডিসেম্বর ২০১৯, ২৪শে অগ্রহায়ণ ১৪২৬


মেয়রের অনুষ্ঠানে স্ক্রিনে নিজের ছবি না দেখে হাজী সেলিমের হট্টগোল


১৭ নভেম্বর ২০১৯ ০৩:৪৬

আপডেট:
৭ ডিসেম্বর ২০১৯ ২৩:১১

পুরান ঢাকার লালবাগের শহীদ হাজি আবদুল আলীম মাঠের সংস্কারকাজ উপলক্ষে ছিল পূর্বনির্ধারিত অনুষ্ঠান। মাঠটির সংস্কারকাজ করা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এ উপলক্ষে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে। বিকেল ৩টার দিকে অনুষ্ঠানস্থলে আসেন স্থানীয় সংসদ সদস্য হাজী সেলিম। মাঠের ভেতরে তৈরি করা বড় মঞ্চের পেছনে বসানো হয়েছে এলইডি স্ক্রিন। প্রজেক্টরের ব্যবস্থাও আছে। কিন্তু মঞ্চের এলইডি স্ক্রিনে ছিল না হাজী সেলিমের ছবি। বিষয়টি দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে হাজী সেলিম নিজেই মঞ্চে উঠে অনুষ্ঠানের জন্য আনা মাইক ফেলে দেওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন বৈদ্যুতিক সরঞ্জামের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। গতকাল শনিবার এ ঘটনা ঘটে। পরে ডিএসসিসির মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন এসে পরিস্থিতি শান্ত করে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, সাংসদ হাজী সেলিম ও ডিএসসিসির ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাসিবুর রহমান মানিকের মধ্যে দ্বন্দ্ব অনেক আগের। কাউন্সিলর মানিক মূলত গতকালের ওই অনুষ্ঠানের আয়োজকের দায়িত্বে ছিলেন। তাদের দুজনের মধ্যকার পুরনো দ্বন্দ্বের কারণেই এ ঘটনাটি ঘটে। হাজী সেলিমের অনুসারীদের দাবি, এই এলাকার সাংসদ হিসেবে হাজী সেলিমকে যথাযথ সম্মান দেওয়া হয়নি। ফলে তারা এ অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেন। একপর্যায়ে তারা মানিকের দিকে তেড়ে আসেন। ডিএসসিসির কয়েকজন কর্মকর্তাকেও তারা ধাক্কা দেন। এতে অনুষ্ঠানস্থলে ব্যাপক হট্টগোল সৃষ্টি হয়। এ সময় সাংসদ হাজী সেলিম ও কাউন্সিলর মানিকের সমর্থকরা পক্ষে-বিপক্ষে স্লোগান দিতে থাকেন। এভাবে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী চলে টানটান উত্তেজনা। এরই মধ্যে বিকেল ৪টার দিকে মেয়র সাঈদ খোকন এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন। শুরু হয় মাঠের উন্নয়নের ওই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।

ডিএসসিসি থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ‘জল সবুজে ঢাকা’ প্রকল্পের আওতায় লালবাগের শহীদ হাজি আবদুল আলীম খেলার মাঠের সংস্কারকাজ করা হয়েছে। প্রায় ৭৫ কাঠা আয়তনের এই মাঠ সংস্কারে খরচ হয়েছে ৮ কোটি ১০ লাখ টাকা।